আইসক্রিমের নেশা থেকে ১৭০০ কোটি টাকার মালিক!

আপডেট : ২০ নভেম্বর, ২০১৯
ছবি: সংগৃহীত

 অনলাইন ডেস্ক: মেরিলিস বান তখন ২৪’র যুবতী। চাকরি ছেড়ে বেকার বসে আছেন। নিউইয়র্কের ইস্ট ভিলেজের বিভিন্ন ক্যাফে ঘুরে ঘুরে কাটে তার অখণ্ড অবসর। সেই দিনগুলোতে শুধু ভাবতেন কী হবে তার গতি!

মেরিলিস ছেলেবেলা থেকেই আইসক্রিম খেতে ভালোবাসেন। সেই টানে নিউইয়র্কের আইসক্রিম দোকানগুলোতে ঢুঁ মারতেন হরহামেশা। হঠাৎ তার মনে হল এই আইসক্রিম নিয়েই কিছু করবেন। সেই ভাবনা থেকে ‘আইসক্রিমের জাদুঘরের’ পরিকল্পনা করেন। এই মিউজিয়াম অব আইসক্রিম প্রতিষ্ঠানটি গত কয়েক মাসে বিভিন্ন ভেঞ্চার ক্যাপিটাল প্রতিষ্ঠান থেকে ১৭০০ কোটি টাকার মূলধন সংগ্রহ করেছে!

‘আইসক্রিম এমন একটি জিনিস, যা পৃথিবীর সবকিছুর থেকে আমার কাছে প্রিয়,’ জানিয়ে মেরিলিস বলেন, ‘আমার আইডিয়া প্রথমে কেউ পাত্তা দেয়নি। এখন অনেকেই এগিয়ে আসছে। আমার জাদুঘরে সব ধরনের আইসক্রিম পাওয়া যায়।’

মেরিলিস তার আইডিয়াকে বাস্তবে পরিণত করেন বন্ধু মনিষ ভোরার সাহায্য নিয়ে। সহপ্রতিষ্ঠাতা ভোরা বলেন, ‘জাদুঘর বলতে আমরা যা বুঝি এটি তা থেকে আলাদা। এখানে যারা আসবেন তারা আইসক্রিমের রেপ্লিকা দেখার পাশাপাশি বিভিন্ন স্বাদের আইসক্রিম খেতেও পারবেন। এছাড়া এখানে আসা দর্শনার্থীদের ছবি তুলে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ব্যাপারেও আমরা উৎসাহ দিচ্ছি।’

জাদুঘরের ভেতরে রয়েছে চকলেটের বিস্ময়কর সুইমিং পুল। এ সুইমিং পুল তৈরি করা হয়েছে ১০ কোটি চকলেট দিয়ে।

জনপ্রিয় হয়ে ওঠা ‘মিউজিয়াম অব আইসক্রিমে’ প্রবেশ করতে দর্শনার্থীদের গুনতে হয় ২৯ মার্কিন ডলার। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের চারটি শহরে রয়েছে তাদের আয়োজন।