কৃষকরা পাবে ২৬ হাজার কোটি টাকা ঋণ

আপডেট : ২২ জুলাই, ২০২০

অনলাইন ডেস্ক :করোনাভাইরাসের আর্থিক সংকট মোকাবিলায় চলতি (২০২০-২১) অর্থবছরে কৃষকদের জন্য ২৬ হাজার ২৯২ কোটি টাকা ঋণ বরাদ্দ রেখেছে ব্যাংকগুলো। যা গেল অর্থবছরের চেয়ে ৮ দশমিক ৯৯ শতাংশ বেশি। বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বুধবার (২২ জুলাই) নতুন অর্থবছরের জন্য কৃ‌ষি ও পল্লী ঋণ এ নীতিমালা এবং কর্মসূচি প্রণয়ন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংকের কৃষি ঋণ বিভাগ। সে অনুযায়ী, করোনা মহামারীর আর্থিক সঙ্কট মোকাবেলা এবং সরকারের কৃষি ও কৃষিবান্ধব নীতির সঙ্গে মিল রেখে দারিদ্র বিমোচন, ক্ষুধা-মুক্তি ও পল্লী উন্নয়ন নিশ্চিতের মাধ্যমে টেকসই অগ্রগতির প্রধান তিনটি ধাপ অর্জনে কৃষিতে ঋণপ্রবাহ বাড়ানো হচ্ছে।  

নতুন অর্থবছরের কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচি বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংক আরো বলছে, মোট কৃষি ও পল্লী ঋণের মধ্যে ১১ হাজার ৪৫ কোটি টাকা বিতরণ করবে রাষ্ট্রায়াত্ত বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকগুলো। ‌ আর বাকি ১৫ হাজার ২৪৭ কোটি টাকা বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা দেয়া হয়েছে বেসরকারি ও বিদেশি ব্যাংকগুলোকে। নতুন ঋণ-কর্মসূচিতে গয়াল ও তিতির পাখি পালন, কন্টাক্ট ফার্মিংয়ের মাধ্যমে গরু মোটাতাজাকরণ, বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ এবং ঋণ নিয়মাচারে একর প্রতি ফসলের ঋণসীমা বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বল‌ছে, বিগত ২০১৯-২০ অর্থবছরে ব্যাংকগু‌লো মোট ২২ হাজার ৭৪৯ কোটি টাকা কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ করেছে, যা গেল অর্থবছরে মোট লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫ দশমিক ৭০ শতাংশ বা এক হাজার ৩৭৫ কোটি টাকা কম। গেল অর্থবছ‌রে কৃ‌ষি ঋণের লক্ষ্যমাত্র‌া ছিল ২৪ হাজার ১২৪ কোটি টাকা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত অর্থবছরে মোট ৩০ লাখ ৬৬ হাজার ৭৮৬ জন কৃষি ও পল্লী ঋণ পেয়েছেন, যার মধ্যে ব্যাংকগু‌লো নিজস্ব নেটওয়ার্ক ও এমএফআই লিঙ্কেজের মাধ্যমে ১৫ লাখ ১৪ হাজার ৩৬৭ জন নারী প্রায় ৮ হাজার ৩৫৯ কো‌টি ৯৩ লাখ টাকা কৃষি ও পল্লী ঋণ পেয়েছেন। আলোচিত সম‌য়ে ২৩ লাখ ৫৪ হাজার ৮৮৮ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষি বিভিন্ন ব্যাংক থেকে প্রায় ১৬ হাজার ২৫০ কোটি টাকা এবং চর, হাওর প্রভৃতি অনগ্রসর এলাকার ৭ হাজার ১৭৯ জন কৃষক প্রায় ২১ কো‌টি ২১ লাখ টাকা কৃষি ও পল্লী ঋণ পেয়েছেন।