জেনে নিন কোন কোন দেশে রয়েছে স্বর্ণের নদী

১১ অক্টোবর, ২০১৯ | aparadhsutra.com

n/a

নদীর সঙ্গে মানব সভ্যতার গাঢ় সম্পর্ক। পানীয় জল, বিদ্যুৎ উৎপাদন, কলকারখানা, নগর গড়ে ওঠা, সবটাই নদীর উপর নির্ভরশীল। কিন্তু জানেন কি এই বিশ্বে এমন কিছু নদী রয়েছে যেখান থেকে সোনা পাওয়া যায়! এর মধ্যে রয়েছে এ দেশের নদীও। তেমনই কিছু স্বর্ণের নদীর কথা জেনে নিন এবার।

 

 

 

 

 

​​​​​​​

 

 

 

ভারতের ঝাড়খণ্ডের সুবর্ণরেখা নদী: এই নদীর নামের মধ্যেই সোনা লুকিয়ে রয়েছে।  এই নদী দিয়ে নাকি পানির সঙ্গে সোনাও বয়ে চলে।  এমনটাই কথিত রয়েছে।

ভারতের ঝাড়খণ্ডের সুবর্ণরেখা নদী: এই নদীর নামের মধ্যেই সোনা লুকিয়ে রয়েছে। এই নদী দিয়ে নাকি পানির সঙ্গে সোনাও বয়ে চলে। এমনটাই কথিত রয়েছে।

  • সুবর্ণরেখা নদীর উৎপত্তি রাঁচীর পিসকা গ্রাম থেকে। শোনা যায়, এক সময় নাকি এই পিসকা গ্রামে সোনার খনি ছিল। সেই জন্যই এই নদীর নাম সুবর্ণরেখা। আর সেই খনি থেকেই সোনা নদীতে মিশে যায়।

    সুবর্ণরেখা নদীর উৎপত্তি রাঁচীর পিসকা গ্রাম থেকে। শোনা যায়, এক সময় নাকি এই পিসকা গ্রামে সোনার খনি ছিল। সেই জন্যই এই নদীর নাম সুবর্ণরেখা। আর সেই খনি থেকেই সোনা নদীতে মিশে যায়।

  • বর্ষার পর সুবর্ণরেখায় জল কমে গেলে তীরে নাকি সোনার টুকরো পড়ে থাকে। আজও দেখা যায় স্থানীয় মানুষেরা বালি থেকে সোনা খুঁজছেন।

    বর্ষার পর সুবর্ণরেখায় জল কমে গেলে তীরে নাকি সোনার টুকরো পড়ে থাকে। আজও দেখা যায় স্থানীয় মানুষেরা বালি থেকে সোনা খুঁজছেন।

  • খারকাই নদী: সুবর্ণরেখার উপনদী হল খারকাই। জামশেদপুরের আদিত্যপুরের উপর দিয়ে বয়ে গিয়েছে এই নদী। এই নদীর দৈর্ঘ্য মাত্র ৩৭ কিলোমিটার।

    খারকাই নদী: সুবর্ণরেখার উপনদী হল খারকাই। জামশেদপুরের আদিত্যপুরের উপর দিয়ে বয়ে গিয়েছে এই নদী। এই নদীর দৈর্ঘ্য মাত্র ৩৭ কিলোমিটার।

  • এই নদীতেও নাকি সোনা পাওয়া যায়। সুবর্ণরেখা নদীর সঙ্গে যোগসূত্রের কারণে এই খারকাইয়েও সোনা ভেসে আসে। এখানেও স্থানীয় মানুষদের সোনার সন্ধান করতে দেখা যায়। তাঁদের মতে, সারা দিন খোঁজার পর চালের থেকেও ছোট আকারের সোনার টুকরো মেলে।

    এই নদীতেও নাকি সোনা পাওয়া যায়। সুবর্ণরেখা নদীর সঙ্গে যোগসূত্রের কারণে এই খারকাইয়েও সোনা ভেসে আসে। এখানেও স্থানীয় মানুষদের সোনার সন্ধান করতে দেখা যায়। তাঁদের মতে, সারা দিন খোঁজার পর চালের থেকেও ছোট আকারের সোনার টুকরো মেলে।

  • ক্লনডাইক নদী: কানাডার ডসন শহরের ইওকন নদীর উপনদী হল ক্লনডাইক। ওজিলভিয়ে পর্বত থেকে সৃষ্টি হয়েছে নদীটি। এই নদীর আশেপাশে সোনা খুঁজে পেতে পারেন আপনিও।

    ক্লনডাইক নদী: কানাডার ডসন শহরের ইওকন নদীর উপনদী হল ক্লনডাইক। ওজিলভিয়ে পর্বত থেকে সৃষ্টি হয়েছে নদীটি। এই নদীর আশেপাশে সোনা খুঁজে পেতে পারেন আপনিও।

  • ১৮৯৬ সালে ১৬ অগস্ট প্রথম এই নদীতে সোনার সন্ধান মেলে। মার্কিন খনিজ সন্ধানকারী জর্জ কারম্যাক প্রথম এর সন্ধান দেন। এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পর ১৮৯৬ সাল থেকে ১৮৯৯ সাল পর্যন্ত রীতিমতো গোল্ড রাশ হয় ডসন শহরের ক্লনডাইক নদীতে।

    ১৮৯৬ সালে ১৬ অগস্ট প্রথম এই নদীতে সোনার সন্ধান মেলে। মার্কিন খনিজ সন্ধানকারী জর্জ কারম্যাক প্রথম এর সন্ধান দেন। এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পর ১৮৯৬ সাল থেকে ১৮৯৯ সাল পর্যন্ত রীতিমতো গোল্ড রাশ হয় ডসন শহরের ক্লনডাইক নদীতে।

  • লক্ষাধিক খনিজ সন্ধানকারী বেরিয়ে পড়েন ক্লনডাইকের উদ্দেশে। জানা যায়, তাদের অনেকে সোনা উত্তোলন করে প্রচুর ধনী হয়ে গিয়েছিলেন। আবার অনেকে কিছুই করে উঠতে পারেননি।

    লক্ষাধিক খনিজ সন্ধানকারী বেরিয়ে পড়েন ক্লনডাইকের উদ্দেশে। জানা যায়, তাদের অনেকে সোনা উত্তোলন করে প্রচুর ধনী হয়ে গিয়েছিলেন। আবার অনেকে কিছুই করে উঠতে পারেননি।

  • জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব আলাক্সার চিলকুটের মধ্যে দিয়ে বরফে ঘেরা অনেকটা রাস্তা পাড়ি দিয়ে তাঁরা পৌঁছন ডসন শহরে। ১৮৯৬ সালের আগে পর্যন্ত এই শহরের জনসংখ্যা ছিল ৫০০। ১৮৯৬ থেকে ১৮৯৯ সালের মধ্যে সেই সংখ্যাটা গিয়ে দাঁড়ায় ৩০ হাজার। অস্থায়ী বাড়ি বানিয়ে তারা বসবাস করতে শুরু করেন এই দুর্গম শহরে।

    জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব আলাক্সার চিলকুটের মধ্যে দিয়ে বরফে ঘেরা অনেকটা রাস্তা পাড়ি দিয়ে তাঁরা পৌঁছন ডসন শহরে। ১৮৯৬ সালের আগে পর্যন্ত এই শহরের জনসংখ্যা ছিল ৫০০। ১৮৯৬ থেকে ১৮৯৯ সালের মধ্যে সেই সংখ্যাটা গিয়ে দাঁড়ায় ৩০ হাজার। অস্থায়ী বাড়ি বানিয়ে তারা বসবাস করতে শুরু করেন এই দুর্গম শহরে।

  • এই নদীতে খনন শুরু করেন অনেকে। সেখানে নদীর পাড়ে বরফ হয়ে যাওয়া বালি তুলে, বরফ গলিয়ে সোনা উদ্ধার করা হয়। এখানে সোনা উত্তোলনে কোনো আইনি বাধা নিষেধ নেই। চাইলে যে কোনো ব্যক্তি সোনা খুঁজতে পারেন।

    এই নদীতে খনন শুরু করেন অনেকে। সেখানে নদীর পাড়ে বরফ হয়ে যাওয়া বালি তুলে, বরফ গলিয়ে সোনা উদ্ধার করা হয়। এখানে সোনা উত্তোলনে কোনো আইনি বাধা নিষেধ নেই। চাইলে যে কোনো ব্যক্তি সোনা খুঁজতে পারেন।



  ফটো সংবাদ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Aparadh Sutra

Subscribe Me

নামাজের সময়সূচি

শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০
ফজর ৪:২৬
জোহর ১১:৫৬
আসর ৪:৪১
মাগরিব ৬:০৯
ইশা ৭:২০
সূর্যাস্ত : ৬:০৯সূর্যোদয় : ৫:৪৩

শিরোনামঃ

♦ পদক্ষেপ নিলে এখনো করোনা নিয়ন্ত্রণ সম্ভব: ডব্লিউ ♦ ৮৬ বছর পর আজানের ধ্বনিতে মুখোরিত হাজিয়া সোফিয়া ♦ সামান্য মূল্যে পাওয়া যাবে করোনার ভ্যাকসিন ♦ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সোনার দাম ♦ দেশ একজন দক্ষ নারী নেত্রী এবং সৎ জননেতাকে হারালো: প্রধানমন্ত্রী ♦ দেশে আগষ্ট-সেপ্টেম্বরে করোনা দ্বিতীয় সংক্রমণের ভয়ংকর শঙ্কা ♦ আগাম ১৫ লাখ কবর খুঁড়ছে দ. আফ্রিকা ♦ ক্ষুধার কারণে দৈনিক মারা যাবে ১২ হাজার মানুষ ♦ ভারতীয় সব সংবাদ চ্যানেলের সম্প্রচার নিষিদ্ধ করল নেপাল ♦ অভিযোগ সত্যি হলে পাপুলের আসন খালি হবে