১৯৭৩-২০১৪: কেমন ছিল দশ সংসদ নির্বাচন

২০ অক্টোবর, ২০১৯ | aparadhsutra.com

n/a

৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এর আগে দেশে আরও দশটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু কোন সরকারের সময় কেমন ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছিল, সেসব নির্বাচনে কারা বিজয়ী হয়েছিল, কারা সরকার গঠন করেছিল, সেই সরকার ও সংসদের মেয়াদ কতদিন ছিল মনে আছে কী? কৌতূহলী পাঠকদের জন্য ইতিহাসের খেড়ো খাতা খুঁড়ে এখানে সংক্ষেপে তুলে ধরা হলো দশটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সংক্ষিপ্ত এক চিত্র।

মুক্তিযুদ্ধোত্তর স্বাধীন বাংলাদেশে জনগণের সরাসরি ভোটে ৩০০ সংসদীয় আসনে প্রথম সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ১৯৭৩ সালের ৭ মার্চ। তখন দেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সে নির্বাচনে ১৪টি রাজনৈতিক দল ও স্বতন্ত্র সদস্য মিলিয়ে ১ হাজার ৯১ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছিল শতকরা ৫৪.৯০% ভাগ। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯২টি আসন জয় লাভ করে। তার মধ্যে ১১ জন সংসদ সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হন। এ ছাড়া জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ ৩টি আসনে, স্বতন্ত্র সদস্যরা ৩টি আসনে এবং ন্যাপ (ভাসানী) ও জাতীয় লীগ একটি করে আসনে বিজয় লাভ করেন। ১৯৭৩ সালের ৭ এপ্রিল গণভবনে সংসদের প্রথম অধিবেশন বসেছিল। প্রথম সংসদে প্রধানমন্ত্রী ও সংসদীয় দলের নেতা নির্বাচিত হন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি নারীদের ক্ষমতায়নের জন্য প্রথম সংসদেই ১৫ জন সংরক্ষিত মহিলা এমপির আসন সৃষ্টি করেন এবং তাদের মনোনয়ন দেন। পরে তিনি রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়ে দেশে রাষ্ট্রপতির শাসন জারি করলে সংসদ নেতা  ও প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন এম মনসুর আলী। তবে প্রথম সংসদে বিরোধী দল বা কোনো বিরোধীদলীয় নেতা ছিলেন না।

প্রথম সংসদের মেয়াদ ছিল ১৯৭৩ সালের ৭ এপ্রিল হতে ১৯৭৫ সালের ৬ নভেম্বর পর্যন্ত, দুই বছর ছয় মাস। প্রথম সংসদে স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন তিনজন যথাক্রমে শাহ আবদুল হামিদ, মোহাম্মদ উল্লাহ ও আবদুল মালেক উকিল। এ সংসদের ৮টি অধিবেশনে ১৩৪টি কার্যদিবসে ১৫৪টি আইন পাস হয়। স্বাধীনতার পর নতুন আইনের দরকার ছিল বলে দিনে একাধিক আইনও পাস করার নজির প্রতিষ্ঠিত হয়।

 

দ্বিতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ১৯৭৯ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি। তখন রাষ্ট্রক্ষমতায় ছিলেন লে. জেনারেল জিয়াউর রহমান। সে নির্বাচনে ২৯টি রাজনৈতিক দল ও স্বতন্ত্র মিলিয়ে ২ হাজার ১২৫ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছিল ৫০.৯৪% ভাগ। নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বাধীন নবগঠিত বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) সংসদের ৩০০টি আসনের মধ্যে ২২০টি আসনে বিজয় লাভ করে। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ (মালেক) ৩৯, মুসলিম লীগ ও ডেমোক্রেটিক লীগ ২০, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ ৮, আওয়ামী লীগ (মিজান) ২, বাংলাদেশ জাতীয় লীগ ২, বাংলাদেশ গণফ্রন্ট ২, ন্যাপ (মোজাফ্ফর) ১, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল ১, বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক আন্দোলন ১, জাতীয় একতা পার্টি ১ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ৫টি আসনে সংসদ সদস্য পদ লাভ করেন। এ সংসদেই প্রথমবারের মতো প্রত্যক্ষ ভোটে একজন নারী (সৈয়দা রাজিয়া ফয়েজ, খুলনা-১৪) সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। এই সংসদে সংরক্ষিত মহিলা এমপির আসন সংখ্যা ১৫ জন থেকে বাড়িয়ে ৩০ জন করা হয়।

এই সংসদের সংসদ নেতা  ও প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন শাহ মো. আজিজুর রহমান। তিনি পূর্ণ মেয়াদ দায়িত্ব পালন করেন। এই সংসদের মেয়াদ ছিল দুই বছর ১১ মাস (১৯৭৯ সালের ২ এপ্রিল থেকে ১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ পর্যন্ত)। এই সংসদে স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন মির্জা গোলাম হাফিজ। বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের আসাদুজ্জামান খান। এ সংসদের ৮টি অধিবেশনে ২০৬টি কার্যদিবসে আইন পাস হয় ৬৫টি।

Facebook Twitter Google + খবরটি পড়া হয়েছে 3020 বার


  নির্বাচনী সংবাদ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Aparadh Sutra

Subscribe Me

নামাজের সময়সূচি

সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০
ফজর ৪:২৬
জোহর ১১:৫৬
আসর ৪:৪১
মাগরিব ৬:০৯
ইশা ৭:২০
সূর্যাস্ত : ৬:০৯সূর্যোদয় : ৫:৪৩

শিরোনামঃ

♦ জানুয়ারিতে আসছে মেট্রোরেলের ৫ সেট ট্রেন ♦ আইজিপির নামে সোশ্যাল মিডিয়ায় 'গুজব' ♦ সন্ত্রাসী হামলায় ইরানের জ্যেষ্ঠ পরমাণুবিজ্ঞানী নিহত ♦ ধর্মীয় পরিচয় গোপন করে বিয়ে, ৪ বছর সংসারের পর অস্বীকার! ♦ স্ত্রীকে বোন বানিয়ে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় চাকরি, নিয়োগ বাতিল ♦ প্রধানমন্ত্রীর জাদুকরী নেতৃত্বে দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ: শ ম রেজাউল করিম ♦ চট্রগ্রামে ভয়ংকর কিশোর গ্যাং! ♦ বাতিল হল ট্রাম্প-বাইডেনের নির্বাচনী বিতর্ক ♦ 'ঢাকায় প্রতি ১০ জনের ১ জন করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন' ♦ বাড়ির ওপরে হাঁটতে না দেয়ায় শিশুদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা!