করোনা নিয়ে কিছু কথা। ডা. আবু বকর আকন

০৯ এপ্রিল, ২০২০ | aparadhsutra.com

ফাইল ফটো।

করোনা নিয়ে কিছু কথা

ডা. আবু বকর আকন

সহকারি অধ্যাপক (শিশু সার্জারি বিভাগ)

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।

 

সূচনা: সারা পৃথিবী আজ করোনার দখলে। পারমানবিক বোমাকে ওরা থোরাই কেয়ার করে। তাই ভয়ে মানুষ ঘর বন্দি হয়েছে (কিছু সংখ্যক চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী ছাড়া)। আর হবেইবা না কেন? করোনা মানুষের ফুসফুসে ঢুকেই মারামারি শুরু করে। মারামারিতে কিছু রাসায়নিক পদার্থ (সাইটোকাইন) রিলিজ হয় যা নিউমোনিয়া ঘটায় আর রোগীকে বাধ্য করে আইসিইউতে যেতে। সেখান থেকে কেউ ফিরে আসে। বাকিরা ওপারের ডাকে সারা দেয়।

বিশ্বের সামগ্রিক পরিস্থিতি: সম্পূর্ন নতুন একটি ভাইরাসের দ্বারা আক্রান্ত রোগ যা পৃথিবীর সব মানুষের কাছে করোনা ভাইরাস নামে পরিচিত। ভাইরাসটি আরএনএ ভাইরাস জাতের। এটির উৎপত্তি স্থল চীনের সাংহাই প্রদেশের উহান শহরে। ৩১ শে ডিসেম্বর ২০১৯ চীন বিশ্বের কাছে প্রথম প্রকাশ করে বিষয়টি। বলা হয়ে থাকে, ঐ তারিখের কমপক্ষে ১২ দিন আগে রোগটি একজন সামুদ্রিক মাছ বিক্রেতা মহিলার দেহে শনাক্ত হয়। তারপর জ্যামিতিক হারে আক্রান্ত হতে থাকে ঐ এলাকার বসতিরা। সামাল দিতে হিমশিম খেতে থাকে চীন। একসময় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে তা'রা জানাতে বাধ্য হয়। গত তিনমাসে ভাইরাসটি বিশ্বের ২০৮ টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে। ইতোমধ্যে আক্রান্ত হয় চৌদ্দ লক্ষ মানুষ, মৃত্যু হয়েছে পঁচাশি হাজারের বেশি । যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত হয়েছে চার লাখের বেশি, আর ইতালিতে মৃত্যু হয়েছে সবচেয়ে বেশি, সতেরো হাজার ছাড়িয়েছে আজ। বাংলাদেশে এ রোগটি প্রথম শনাক্ত হয় হয় ৮ ই মার্চ। গত তিনমাসে বাংলাদেশে আক্রান্ত হয়েছে ২১৮ জন যাদের মধ্যে ডাক্তার আছেন দশ জন। মৃত্যু হয়েছে ২০ জনের যাদের মধ্যে দুদকের একজন পরিচালক ছিলেন। ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীসহ বিশ্বের অনেক ক্ষমতাধর ব্যক্তিই আজ আক্রান্ত। বুঝতেই পারছেন এ ভাইরাসটি কাউকে ইজ্জত করছেনা।

উপসর্গ ও লক্ষণ : সর্দি কাশি গলা ব্যাথা জ্বর শ্বাসকষ্ট সাথে কারও কারও ডায়রিয়াও হতে পারে। তবে আশিভাগ রোগী থাকে মৃদু মাত্রার। হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়না। বিশ ভাগকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয় যার মধ্যে অর্ধেকের বেশি সুস্থ্য হয়ে ফিরতে পারেন। বাংলাদেশে ৩৩ জন এযাবৎ সুস্থ্য হয়ে বাসায় ফিরছেন।

চিকিৎসা: এই রোগের কোনো সঠিক চিকিৎসা এখন পর্যন্ত আবিষ্কৃত হয়নি। উপসর্গ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়াই একমাত্র উপায়। কীভাবে প্রতিরোধ করা যায় : এটি প্রচন্ড ছোঁয়াচে একটি রোগ। মানুষ থেকে মানুষের শরীরে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। তাই আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকাটাই একমাত্র উপায়। একারণেই মানুষকে ঘরবন্দি থাকতে হচ্ছে। আর বাইরে কোনো কারণে বের হলে প্রটেকশন নিয়ে বের হবেন। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলবেন। আর ঘরে ফিরে সাবান দিয়ে কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড হাত ধোবেন। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খাবেন। কোনোমতেই ঠাণ্ডা খাবেন না। র চা, গরম পানি খেতে পারেন। আর ভাইরাসটি ফুসফুসে যাতে ঢুকতে না পারে সেজন্যই নাক মুখ ঢেকে রাখতে হয় এন ৯৫ মাস্ক নিয়ে। এটা বিশেষভাবে তৈরী। যদিও পথে ঘাটে বিক্রি করা মাস্কগুলো এন ৯৫ মাস্ক নয়।

শেষ কথা: সকলে ঘরে থাকুন। বাইরে গেলেই ঝুঁকি বেড়ে যায়। ঝুঁকি বাড়ে আপনার/আপনার পরিবারের। তবে বাইরে গেলে অবশ্যই মাস্ক পরবেন আর ঘরে ফিরেই সাবান দিয়ে হাত ধোবেন। তারপর যা জোটে খাবেন। মনে রাখবেন, আপনার সচেতনতা বাঁচিয়ে রাখবে আপনাকে। আর আপনি বাঁচলেই পৃথিবী আবার ভরে উঠবে কলকাকলিতে।

লেখাটির তারিখঃ ০৮/০৪/২০২০ 



  স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Aparadh Sutra

Subscribe Me

নামাজের সময়সূচি

শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০
ফজর ৪:২৬
জোহর ১১:৫৬
আসর ৪:৪১
মাগরিব ৬:০৯
ইশা ৭:২০
সূর্যাস্ত : ৬:০৯সূর্যোদয় : ৫:৪৩

শিরোনামঃ

♦ বাতিল হল ট্রাম্প-বাইডেনের নির্বাচনী বিতর্ক ♦ 'ঢাকায় প্রতি ১০ জনের ১ জন করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন' ♦ বাড়ির ওপরে হাঁটতে না দেয়ায় শিশুদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা! ♦ ঢাকায় আসছেন মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ♦ পদ্মাসেতুর ৩২তম স্প্যান বসছে শনিবার ♦ মানসিক স্বাস্থ্য সত্যিকারেই একটি বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ: সায়মা ওয়াজেদ ♦ বিরল প্রজাতির তক্ষকসহ চোরাকারবারী আটক ♦ বিরল প্রজাতির তক্ষকসহ চোরাকারবারী আটক ♦ জাতির পিতার অসমাপ্ত আত্মজীবনীর ব্রেইল সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন ♦ মহাকাশেও শক্তির প্রমাণ দেখাতে যাচ্ছে চীন