করোনা মোকাবেলায় নিউমোনিয়ার চিকিৎসায় ব্যবহৃত হোমিওপ্যাথিক ওষুধ

২৯ এপ্রিল, ২০২০ | aparadhsutra.com


আমরা জানি COVID-19 আরো ভয়াবহ রূপ ধারণ করছে। আর এ রোগে নিউমোনিয়া আক্রান্ত হয়ে রোগী মারা যায়। তাই নিউমোনিয়ার চিকিৎসায় ব্যবহৃত হোমিওপ্যাথিক ওষুধগুলো সম্পর্কে আমাদের ভাল জ্ঞান রাখতে হবে। আজকে সে ওষুধগুলো আরো বিস্তারিতভাবে পড়বো।

#Aconitum nap: - সবসময় হঠাৎ আক্রমনের ইতিহাস পাওয়া যাবে - সাধারণত ঠাণ্ডার সংস্পর্শে যাওয়া খবর পাওয়া যাবে, যেদিন সে ঠাণ্ডার সংস্পর্শে গিয়েছিল সেদিনই সন্ধ্যায় তীব্র জ্বরে আক্রান্ত হয়, যা দ্র্রুত গতিতে দেখা দিবে। - রোগী শক্তসমর্থ, স্বাস্থবান, নাদুসনুদুস - উচ্চ জ্বর, সুস্পষ্ট উত্তেজিত অবস্থা, অস্থিরতা এবং অনেক উদ্বিগ্নতা বিরাজ করে। - পূর্ণ, লাফানো নাড়ী (bounding pulse), রক্তিম (flushed) চেহেরা এবং উত্তপ্ত, শুষ্ক ত্বক। - সাধারণত মুখের ভিতর খুব শুষ্ক অনুভব করে, খচখচ্‌ লাগে (tingling) এর সাথে তীব্র পিপাসা থাকে। - তারা প্রায় সবসময়ই ঠাণ্ডা পানীয় খেতে চায়।* চোখের তারা সংকোচিত থাকবে। * অত্যন্ত জ্বর, রক্তিম চেহেরা, ত্বক খুব উত্তপ্ত থাকার পরও রোগী তার হাত-পায়ে শীত অনুভব করে। * বিরামহীন, শুষ্ক, ছোট ছোট কাশি, যা গলা শুষ্কতার জন্য হয়। * বুকের বাম পাশে ছোরা মারার মতো বেশ তীব্র ব্যথা। (১২ ঘন্টার মধ্যে দেখা দেয়), বাম ফুসফুসের বাম চূড়ায় ব্যথা; রোগী বাম কাতে শুতে পারে না। * চিৎ হয়ে শুইলে, বা হেলান দিয়ে থাকলে রোগী আরাম বোধ করে। - কয়েক ঘন্টা পার হওয়ার পর কাশিতে কফ বের হয়। কফের সাথে চেরি ফলের মতো লালতে রক্ত মিশ্রিত থাকে। - স্থান: বাম পাশের লোবার নিউমোনিয়া, বিশেষ করে বাম পাশের উপরের লোব আক্রান্ত হয়। - সালফার ওষুধ একোনাইট এর অনুপূরক ওষুধ এবং প্রায়ই আরোগ্য সম্পাদন করার জন্য একোনাইটের পর ব্যবহৃত হয়।

#Ferrum phosphoricum: - আরেকটু ধীর গতিতে বিকাশ লাভ করে, এক থেকে দুই লাগে। - সাধারণত জ্বর বেশি থাকে, প্রায় সবসময়ই ১০৩ ডি. ফা. এর উপরে থাকে। - অনেক সময় শুধু জ্বর ছাড়া অন্য কোন লক্ষণ প্রকাশ পায় না। - স্বভাব: রোগী একাকী থাকতে পছন্দ করে। - পর্যবেক্ষণ: নাড়ী দ্রুত চলে, ম্যালার হাড়ের উপর গোলাকার রক্তিম দাগ, মুখের চারপাশ ফ্যাকাশে থাকে। - প্লুরার মধ্যে ঘর্ষনজনিত শব্দ পাওয়া যায় (Pleural rub) - সার্বদৈহিক: পিপাসা বেশি, ঠাণ্ডা পানি পান করতে চায়। - কাশি: অবিরাম কাশি, বুকের স্টার্নামের নিচে উত্তেজনা/উপদাহ (irritation) হওয়ার জন্য কাশি হয়। - বৃদ্ধি: ঠাণ্ডায়, গায়ে বাতাস লাগলে। - কফ/শ্লেষ্মারেচন: কফের মধ্যে রক্তমিশ্রিত থাকে, লাল রক্তের দাগ। - স্থান: ডান পাশের নিউমোনিয়া, বিশেষ করে ডান পাশের উপরের লোব।

#Belladonna: - হঠাৎ রোগের আক্রমণ, ঠাণ্ডার সংস্পর্শে আসার পর দেখা দেয়। রোগী শক্তসমর্থ। - অত্যধিক জ্বর থাকে, অনেক সময় জ্বর ১০৩ ডি. ফা. থেকে ১০৬ ডি. ফা. পর্যন্ত হতে পারে। - স্বভাব: রোগীর মাঝে খুব দ্রুততম সময়ে বিকার অবস্থা দেখা দেয়। জীবন্ত (vivid) বা ভীতিজনক দৃষ্টিভ্রম (hallucination) হয়। - পর্যবেক্ষণঃ মুখমণ্ডল উজ্জ্বল লাল, রক্তিম। নাড়ী খুব জোরে হয় (bounding pulse) - মুখমণ্ডল খুব গরম, জ্বলে কিন্তু হাত ও পা ঠাণ্ডা থাকে। চোখের তারা (pupils) প্রসারিত। - আলোকভীতি - মুখ শুষ্ক থাকে কিন্তু পিপাসা সাধারণত থাকে না। - লেবুযুক্ত পানীয় পছন্দ।- প্রচণ্ড মাথাব্যথা, দপদপ করে। বৃদ্ধি: সঞ্চালনে, ঝাঁকিতে, কাশিতে বৃদ্ধি। - কাশি: শুষ্ক, ব্যথাযুক্ত কাশি। মনে হয় মাথা ফেটে যাবে। - বৃদ্ধি: সঞ্চালনে, ডান পাশে শুইলে বাড়ে। - স্থান: প্রধাণত ডান পাশ আক্রান্ত হয়।

#Ipecacuanha: - বিশেষ করে শিশু ও দুগ্ধপোষ্যদের জন্য নির্দেশিত হয়। - রোগীর সমস্যা দেখা দিতে দুই থেকে তিন দিন লাগে। - জ্বর তীব্র হয় না। ১০২ ডি. ফা. থেকে ১০৩ ডি. ফা. এর মধ্যে হয়। - স্বভাব: খিটখিটে ও খামখেয়ালি স্বভাব। কখনো সন্তুষ্ট হয় না। - পর্যবেক্ষণঃ রক্তিম চেহেরা, মুখে ঘাম। পরবর্তীতে মুখমণ্ডলে ক্লান্তি ভাব ও ফ্যাকাশে রূপ ধারণ করে। - সায়ানোসিস, বিশেষ করে কাশির প্রকোপের সময়। - জিহ্বা সাধারণ পরিস্কার, লাল ও মসৃণ থাকে। তবে বঙ্কোনিউমোনিয়াতে লেপাবৃত থাকতে পারে। - বুকের মধ্যে শ্বাসকষ্টজনিত আওয়াজ হয় (শ্বাস-প্রশ্বাস সাঁ সাঁ শব্দ হয়) এবং সুস্পষ্টভাবে শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। - কাশি: দমবন্ধকর কাশি, বারবারে প্রচণ্ড প্রকোপে দেখা দেয়; এর সাথে বমিরভাব হয়ে ওয়াক থু করে (retching) এবং বমি করে। - বৃদ্ধি: সন্ধ্যা ৭ টায়, গরমে; উপশম: খোলা বাতাসে। - কফ/শ্লেষ্মারেচন: অনেক সময় সুতার মতো কফ বের হয়, কফের সাথে উজ্জ্বল রক্ত মিশ্রিত থাকে। - স্থান: ফুসফুসের যেকোন স্থান আক্রান্ত হতে পারে। ব্রঙ্কিওলাইটিস, মধ্যবর্তী নিউমোনাইটিস (interstitial pneumonitis)।

#Bryonia alba: - ধীরে ধীরে শুরু হয়, প্রথমে উপরিভাগের শ্বাসনালির সংক্রমণ হয়, সাথে অসুস্থবোধ করে (malaise) এবং হাঁচি হয়। - দ্বিতীয় দিনে ঠোঁট শুকিয়ে ফেটে যায়, মৃদু জ্বর দেখা দেয়। - তৃতীয় বা চতুর্থ দিনে উচ্চ জ্বর হয় এবং মারাত্মক অসুস্থা প্রকাশ পায়। - স্বভাব: খিটখিটে স্বভাব, লোকসঙ্গ অপছন্দ করে, স্বাভাবিক অবস্থার বিঘ্ন ঘটানো অপছন্দ। ব্যবসা নিয়ে অনেক দুঃশ্চিতা করে। বিকার অবস্থায় বাড়ীতে নিয়ে যেতে বলে। -পর্যবেক্ষণঃ মুখমণ্ডল গাঢ় রক্তিম বর্ণের। জিহ্বায় সাদা বা হলদে প্রলেপ অথবা বিশেষ করে ময়লাটে বাদামী প্রলেপ দেখা যায়। প্রলেপ জিহ্বার মধ্যভাগে বেশি দেখা যায়। - সার্বদৈহিক: উত্তাপে বাড়ে; ঠাণ্ডা রুমে ভাল বোধ করে। - প্রচণ্ড পানি পিপাসা, বিশেষ অনেক বেশি পরিমানে ঠাণ্ডা পানি খেতে চায়। - লক্ষণাবলী রাত ৯ টায় বাড়ে। - ব্যথা ও কাশি সঞ্চালনে বাড়ে। - কাশিঃ প্রতিটা কাশিতেই তীব্র ব্যথা হয়; বুক চেপে ধরে কাশি দেয়। - প্লুরার ব্যথা। সঞ্চালনে, গভীরভাবে শ্বাস নিলে ব্যথা বাড়ে। গভীরভাবে শ্বাস যাতে না নিতে সেজন্য রোগী হাপাতে থাকে, কারণ সে জানে গভীর শ্বাস নিলে তার কাশি শুরু হয়ে যায়, যা খুব ব্যথাপূর্ণ।- কফ/শ্লেষ্মারেচনঃ গাঢ় বা বাদামী বর্ণের কফ, আঠালো, সেকারনে সহজে উঠানো যায় না। - স্থানীয় লক্ষণ: মাথার সামনের বামপাশে ব্যথা হয় এবং সেখান থেকে ব্যথা মাথার পিছনে বিস্তৃত হয়। প্রচণ্ড মাথাব্যথা, সুঁচফোটান বা ফেটে যাওয়ার ন্যায় ব্যথা। 

ধন্যবাদান্তে

প্রভাষক আ:হাকিম হীরা

ধন্যবাদান্তে ক্ল্যাসিক্যাল হোমিও কমপ্লেক্স

রুপনগর টিনসেড শাখা পল্লবী,

মিরপুর, ঢাকা। 01731299820



  স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Aparadh Sutra

Subscribe Me

নামাজের সময়সূচি

শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০
ফজর ৪:২৬
জোহর ১১:৫৬
আসর ৪:৪১
মাগরিব ৬:০৯
ইশা ৭:২০
সূর্যাস্ত : ৬:০৯সূর্যোদয় : ৫:৪৩

শিরোনামঃ

♦ বাতিল হল ট্রাম্প-বাইডেনের নির্বাচনী বিতর্ক ♦ 'ঢাকায় প্রতি ১০ জনের ১ জন করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন' ♦ বাড়ির ওপরে হাঁটতে না দেয়ায় শিশুদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা! ♦ ঢাকায় আসছেন মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ♦ পদ্মাসেতুর ৩২তম স্প্যান বসছে শনিবার ♦ মানসিক স্বাস্থ্য সত্যিকারেই একটি বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ: সায়মা ওয়াজেদ ♦ বিরল প্রজাতির তক্ষকসহ চোরাকারবারী আটক ♦ বিরল প্রজাতির তক্ষকসহ চোরাকারবারী আটক ♦ জাতির পিতার অসমাপ্ত আত্মজীবনীর ব্রেইল সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন ♦ মহাকাশেও শক্তির প্রমাণ দেখাতে যাচ্ছে চীন